গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির লড়াইয়ে আছি, থাকবো: মান্না

দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা ও খালেদা জিয়ার মুক্তির লড়াইয়ে আছি, থাকব বলে জানিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

তিনি বলেন, আজ আ স ম আব্দুর রব এর একটা প্রোগ্রাম আছে। সেখানে যাওয়ার আগে ভাবলাম জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের এই প্রোগ্রামে একবার দেখা করে যাই আর বলে আসি এই লড়াইয়ে আছি থাকবো।

শুক্রবার (৪ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের উদ্যোগে ‘প্রতিহিংসার শিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, অসহায় বিচারব্যবস্থা, গণতন্ত্রর মু‌ক্তি কতদূর’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মান্না বলেন, এই সরকার কি শুদ্ধ অভিযান সফল করতে পারবে? যুবলীগের একটা দুইটা ধরছে বাকিগুলো যদি ধরতে চায় তাহলে যুবলীগ থাকবে না।

‌তি‌নি ব‌লেন, দেখবেন আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠন কোনো না কোনো বিষয়ের সঙ্গে জড়িত আছে; হয় ক্যা‌সি‌নোর সঙ্গে, হয় দুর্নী‌তির সঙ্গে, হয় লুটপা‌টের সঙ্গে। গত ১০ বছরে লুটপাটের মহোৎসব সৃষ্টি করেছে এ সরকার। মানুষ ভিতরে ভিতরে ক্ষেপে গেছে কিন্তু কিছু বলতে পারে না। তারপরও ব‌লে বসে, কোথাও আড্ডা দিলে বলে আর ফেসবুকে তো ছড়াছ‌ড়ি। এগুলো বাস্তবায়িত হলে এতদিনে এই সরকার তো থাকতই না। দেশে আওয়ামী লীগ বলতে কোনো কিছু থাকত না। এই অবস্থা দেখে হঠাৎ করে শেখ হাসিনার মনে হলো একটি শুদ্ধ অভিযান করা দরকার, এটা কি কোনো শুদ্ধ অভিযান? ছাত্রলীগের সভাপতি সেক্রেটারি কে বললেন তোমরা পদত্যাগ করো এটা কি কোনো পানিশমেন্ট। এটা মানু‌ষের চো‌খে ধুলা দেওয়ার একটা ব্যবস্থা।

তিনি আরও বলেন, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিট ছাত্রলীগের সভাপতি এক কোটি টাকার ওপরে পেয়েছে এটার কোনো মামলা হয়নি। ভাইস-চ্যান্সেলর কত টাকা পেয়েছে এটার উপরে কোনো তদন্ত হয়নি, মামলা হয়নি। বেগম জিয়া কত টাকা লুট করেছে, তাদের (আওয়ামী লীগ) ভাষায় দু’কোটি টাকা; যে টাকা ব্যাংকে রাখা হয়েছে তা এখন ৮ কোটির উপরে হয়েছে। যে টাকা বেগম খালেদা জিয়া ‌মে‌রে দি‌য়ে‌ছে তার প্রমাণ করতে পারেনি। সেই মামলার সাজা দেয়া হয়েছে ১৭ বছর। তাহলে ওই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সেক্রেটারি কত বছর সাজা হওয়া উচিত?

মান্না ব‌লেন, দেশের একজন মানুষ কি বলবে বেগম জিয়া দুর্নীতি করেছে ? তার নামে মামলা হয়েছে একজন ব্যক্তির প্রতিহিংসার কারণে। কাজেই বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে দেশে আবার গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে লড়াই করতে হবে, কুতুকুতু করে হবে না।

শেখ হাসিনার মন নরম নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, তার মন যদি নরম হতো তাহলে এতগুলো মানুষ গুম হতো না। ক্রসফায়ারে মারা হতো না। এত হাজার হাজার মানুষ এর নামে মামলা হতো না। ৩০ তারিখের ভোট ৩৯ তারিখ রাতে হতো না।

‌বিএন‌পির নেতা কর্মী‌দের উদ্দেশ্য ‌তি‌নি ব‌লেন, কারো কারো মন আছে মমের মত নরম। আবার কারো কারো মন আছে ইস্পাত এর মত শক্ত তাই আগে মন চেনেন তারপরে সিদ্ধান্ত নেন রাস্তায় নামবেন, না আন্দোলন করবেন।

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাত এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা প্রমুখ।

Facebook Comments