সিরাজগঞ্জে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ এলাকায় একজন নার্স (১৭) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে উপজেলার কুটিরচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে ভিকটিমকে উদ্ধার করে এলাকাবাসী। দুপুরে ভিকটিমের ভাই বাদী হয়ে কামারখন্দ থানায় মামলা করেন। মামলার পর পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতার দুই জন হলো কামারখন্দ উপজেলার কুটিরচর গ্রামের দুলাল সেখের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (২০) এবং একই এলাকার মুকাদ্দেস আলীর ছেলে নাইমুল হক (২০)। মেহেদীসহ অপর দুই আসামি পলাতক রয়েছে।

মামলার সূত্রে জানা যায়, উল্লাপাড়ার একটি হাসপাতালে কর্মরত এক নার্সের সঙ্গে গত প্রায় এক বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে কামারখন্দের কুটিরচর গ্রামের দুলাল সেখের ছেলে আশরাফুল। রবিবার সন্ধ্যায় বিয়ের কথা বলে আশরাফুল ওই নার্সকে কামারখন্দ নিয়ে আসে। এরপর ওই নার্সকে গ্রামের একটি ইউক্যালিপটাস বাগানে নিয়ে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে আশরাফুল ও তার বন্ধুরা।

পরে সকালে স্থানীয়রা ওই নার্সকে উদ্ধার করে ও পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ মেয়েটিকে তার স্বজনদের হাতে তুলে দেন। এ ঘটনায় ভিকটিমের ভাই থানায় মামলা করলে পুলিশ দু’জনকে গ্রেফতার করে।

কামারখন্দ থানার ওসি হাবিবুল ইসলাম জানান, সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় কিশোরীর ভাই বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। চার জন আসামির মধ্যে দু’জকে গ্রেফতার করে বিকালে সিরাজগঞ্জ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Facebook Comments